আ’লীগ সরকারই শিক্ষানীতি গ্রহণ করেছে- খাগড়াছড়িতে বীর বাহাদুর উশৈসিং

1নিজস্ব প্রতিবেদক ।। পার্বত্য চট্রগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং বলেছেন, আ’লীগ সরকারই শিক্ষানীতি গ্রহণ করেছে। শিক্ষার জন্য বঙ্গবন্ধুর পরে তারই কণ্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দেশের প্রাথমিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠানকে জাতীয়করণ করেছে।

বৃহস্পতিবার বিকালে জেলা শহরের পৌর টাউন হল মিলনায়তনে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ কর্তৃক অনুষ্ঠিত ২০১৪ সালের ৪র্থ ও ৭ম শ্রেণীর বৃত্তি পরীক্ষায় কৃতি শিক্ষার্থীদের মাঝে বৃত্তি ও সনদপত্র প্রদান এবং জেলার বিভিন্ন সংগঠনকে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সামগ্রী বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রী আরও বলেন, পার্বত্য চট্রগ্রামের মানুষ দেশের বোঝা নয়, সম্পদ। এ অঞ্চলের মানুষকে শিক্ষিত করে সম্পদে পরিণত করতে সরকার সবসময় চেষ্ঠা করে যাচ্ছে। এজন্য পার্বত্যঞ্চলের ২২৮ টি বিদ্যালয়কে জাতীয়করণ করতে প্রক্রিয়া শুরু করা হয়েছে। তিনি প্রতিটি শিশুকে সু-শিক্ষায় শিক্ষিত করে গড়ে তুলতে শিক্ষকদের পাশাপাশি অভিভাকদেরও এগিয়ে আসার আহ্বান জানান।

খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরীর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অনন্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন, সাংসদ কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, পার্বত্য চট্রগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের ভাইস চেয়ারম্যান তরুণ কান্তি ঘোষ, জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান, জেলা পরিষদের সদস্য ও শিক্ষা বিষয়ক আহ্বায়ক মংক্যাচিং চৌধুরী।

এসময় সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান চঞ্চু মণি চাকমা, জেলা আ’লীগের সাধারণ সম্পাদক ও জেলা পরিষদের সদস্য জাহেদুল আলম, সহকারী পুলিশ সুপার এনায়েত হোসেন মান্না উপস্থিত ছিলেন।

04পরে প্রতিমন্ত্রী ৪র্থ ও ৭ম শ্রেণীর বৃত্তি পরীক্ষায় জেলা পর্যায়ে মেধাক্রমে ১ম, ২য় ও ৩য় স্থান অর্জনকারীসহ ট্যালেন্টপুল ও সাধারণ বৃত্তি প্রাপ্তদের বৃত্তি ও সনদপত্র  এবং জেলা পর্যায়ে শ্রেষ্ঠ বিদ্যালয়সমূহের প্রধান শিক্ষকদের ক্রেস্ট এবং জেলার বিভিন্ন সংগঠনকে ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সামগ্রী তুলে দেন।

অনুষ্ঠানে তিনি ৪র্থ ও ৭ম শ্রেণীর বৃত্তি পরীক্ষায় মেধাক্রমে ১ম, ২য় ও ৩য় শ্রেনীর বৃত্তি প্রাপ্তদের ও শ্রেষ্ঠ বিদ্যালয় গুলোকে পার্বত্য মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আর্থিক অনুদানেরও ঘোষণা দেন।

Guimara picএর আগে বীর বাহাদুর জেলার গুইমারায় সেনাবাহিনীর উদ্যোগে নির্মিত গুইমারা কলেজের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেন এবং একাডেমিক ভবন পরিদর্শন করেন৤ এসময় তিনি কলেজের উন্নয়নের জন্য পার্বত্য মন্ত্রণালয় থেকে ১০০ মেট্রিক টন খাদ্যশষ্য বরাদ্দ দেন এবং বিভিন্ন ও ব্যাক্তি ও প্রতিষ্ঠানের পক্ষ থেকে প্রদত্ত তহবিল সংগ্রহ করেন৤  পরে অন্যন্যদের সাথে নিয়ে কলেজ ক্যাম্পাসে একটি গাছের চারা রোপণ করেন প্রতিমন্ত্রী৤

খাগড়াছড়ি নিউজ/শাই/ বৃহস্পতিবার, ১৭ সেপ্টেম্বর ২০১৫ইং-।।

মতামত...