খাগড়াছড়িতে অস্ত্রসহ ইউপিডিএফ নেতার আত্মসমর্পণ

নিজস্ব প্রতিবেদক ।। খাগড়াছড়িতে সেনাবাহিনীর কাছে অস্ত্র সমর্পণ করেছে ইউপিডিএফ নেতা আনন্দ চাকমা। তিনি পার্বত্য চট্টগ্রাম চুক্তিবিরোধী ইউনাইটেড পিপলস্ ডেমোক্রেটিক ফ্রন্ট (ইউপিডিএফ) এর নানিয়ারচর সার্কেলের বিচার ও সাংগঠনিক শাখার প্রধান। নিজের এবং পরিবারের নিরাপত্তাসহ স্বাভাবিক জীবনে ফিরতে চান তিনি।

আত্মসমর্পণের পর আজ বৃহস্পতিবার দুপুরে খাগড়াছড়ি প্রেসক্লাবে সাংবাদিকদের সামনে আনা হলে আনন্দ চাকমা জানান, ইউপিডিএফ’র অব্যাহত খুন, গুম, অপহরণ ও চাঁদাবাজির কারনে এলাকার সাধারণ আতঙ্কগ্রস্ত। তিনি বলেন, আদর্শহীন ইউপিডিএফ’র খুন, গুম, অপহরণ, চাঁদাবাজির কারণে স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসার আশায় অস্ত্রসমর্পণ করেছি। আনন্দ চাকমার মতো অনেকেই স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে চায়, তবে ইউপিডিএফ তাদের হত্যার ভয় দেখাচ্ছে বলেও অভিযোগ আনেন তিনি। সরকার ঘোষণা দিলে অনেক ইউপিডিএফ’র নেতাকর্মী স্বাভাবিক জীবনে ফিরে আসতে প্রস্তুত বলে সাংবাদিকদের জানান আনন্দ চাকমা।

এছাড়া ইউপিডিএফ এর প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি প্রসীত বিকাশ খীসার নেতৃত্বাধীন ইউপিডিএফ অনেক শক্তিশালী হয়ে গেছে। এবং তাদের কাছে একে-৪৭, এসএমজি, চাইনিজ রাইফেল, এলএমজি ও এম-১৬’র মতো দেশী বিদেশী বিপুল পরিমাণ ভারী আগ্নেয়াস্ত্র রয়েছে বলেও দাবী তার।

এসময় আনন্দ চাকমা জানান, জঙ্গলের অস্বাভাবিক জীবন ছেড়ে স্বাভাবিক জীবনের ফিরে আসায় পরিবারের সদস্যরা আনন্দিত। আমার এক ছেলে সরকারি চাকরি করছে আর মেয়ে উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হচ্ছে। আমিও এই স্বাধীন দেশের উন্নয়নের ধারায় সম্পৃক্ত করে আমার বাকী জীবনটা একজন আদর্শ নাগরিক হিসেবে সুখে-শান্তিতে অতিবাহিত করতে চাই। এসময় সরকারের কাছে তার পরিবারের জন্য পুনর্বাসন দাবী করেন তিনি।

এর আগে গতকাল বুধবার দিবাগত রাতে খাগড়াছড়ি সেনা রিজিয়নের আওতাধীন মহালছড়ি জোন অধিনায়কের কাছে একটি ইউএস-এ তৈরি পিস্তল, ম্যাগজিন ও তিন রাউন্ড গুলিসহ অস্ত্র সমর্পণ করেন আনন্দ চাকমা। সে খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালা উপজেলার মনরঞ্জন চাকমার ছেলে।
খাগড়াছড়ি নিউজ/এস/বৃহস্পতিবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৮ইং।।

মতামত...