খাগড়াছড়িতে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক

খাগড়াছড়িতে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ৫ম বৈঠক অনুষ্ঠিত।

নিজস্ব প্রতিবেদক।। একাদশ জাতীয় সংসদের পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির ৫ম বৈঠক অনুষ্ঠিত হয়েছে খাগড়াছড়িতে। দুপুরে পার্বত্য জেলা পরিষদের মিলনায়তনে এ বৈঠকের আয়োজন করা হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির সভাপতি ও ঠাকুরগাঁও দুই আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব মো. দবিরুল ইসলাম।

বৈঠকে ৪র্থ বৈঠকের কার্যবিবরণী অনুমোদন এবং সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন ও অগ্রগতি পর্যালোচনা, পার্বত্য জেলায় প্রাথমিক শিক্ষার উন্নয়নের গৃহিত পদক্ষেপ ও সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক নিয়োগ সম্পর্কে আলোচনা, পার্বত্য চট্টগ্রাম ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশন আইন ২০০১ বাস্তবায়নের অগ্রগতি এবং ভূমির পরিমাণ, জুম চাষ ছাড়াও মৌসুমি খাদ্য সংকট নিরসনকল্পে ভূট্টা জাতীয় খাদ্য শস্য চাষাবাদ নিয়ে আলোচনা হয়।

এ সময় পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সদস্য পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি, চট্টগ্রামের রাউজানের সংসদ সদস্য এবিএম ফজলে করিম, খাগড়াছড়ির সংসদ সদস্য ও পার্বত্য শরণার্থী পুনর্বাসন বিষয়ক টাস্কফোর্স চেয়ারম্যান কুজেন্দ্র লাল ত্রিপুরা, সংরক্ষিত আসনের নারী সংসদ সদস্য বাসন্তী চাকমা, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী ও পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব মো: মেসবাহুল ইসলামসহ বিভিন্ন দপ্তরের প্রধানরা উপস্থিত ছিলেন।

বৈঠক শেষে দবিরুল ইসলাম বলেন, সরকার পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রতি আন্তরিক। তাই এখানকার মানুষের ভাগ্য উন্নয়নে কাজ করছেন। পার্বত্য চট্টগ্রামে বসবাসরতদের সমস্যা ও অত্র এলাকার প্রয়োজনীয়তার উপর নির্ভর করে বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কার্যক্রম গ্রহণ করা হবে।

অপরদিকে, বৈঠক শেষে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং এমপি পাহাড় থেকে অস্ত্র উদ্ধার চান উল্লেখ করে বলেন, উন্নয়নের পূর্বশর্ত হচ্ছে এলাকার শান্তি, সম্প্রীতি বজায় রাখা। তাই পার্বত্য এলাকার জনগণের জানমাল রক্ষায় সরকার যা করার তাই করবে।
খাগড়াছড়ি নিউজ/এস/শনিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৯ইং।।

মতামত...