পাহাড়ী ও বাঙ্গালীকে পারস্পারিক সহাবস্থানে থেকে শান্তি সম্প্রীতি বজায় রাখতে হবে- শান্তি সমাবেশে বক্তারা

11828773_1615405462064046_185458_nনিজস্ব প্রতিবেদক।।

খাগড়াছড়ি জেলার মানিকছড়ি উপজেলার হাতিমুড়া এলাকায় ভূমি বিরোধের জেরে পূর্ণবাসিত তিন বাঙ্গালী পরিবারের বসত বাড়িতে ভাংচুর, অগ্নিসংযোগের চেষ্টা ও লুটপাটের অভিযোগের ঘটনায় উত্তেজিত জনগণদের নিয়ে এলাকায় শান্তি সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে। আজ মঙ্গলবার বিকেলে হাতিমুড়া বাজার এলাকায় এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে জনপ্রতিনিধি ও প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা বক্তব্য রাখেন।
বক্তারা বলেন, পাহাড়ী ও বাঙ্গালীকে পারস্পারিক সহাবস্থানে থেকে এলাকায় শান্তি সম্প্রীতি বজায় রাখতে হবে। এতে করে এলাকাবাসীকে প্রশাসনকে সহযোগীতা করতে হবে।

এর আগে গত সোমবার রাতে উপজেলার হাতিমুড়ার ভিজাবাওন্তি টিলা নামক এলাকায় পূর্ণবাসিত বাঙ্গালী আব্দুর রাজ্জাক, আবুল কালাম বাবুল ও মো: ইমদাদুল হকের বসত বাড়িতে দেশীয় অস্ত্র নিয়ে ৩০-৪০ জনের সন্ত্রাসীর একটি দল ভাংচুর ও মালামাল লুটপাট করাকে কেন্দ্র করে এলাকায় উত্তেজনা দেখা দেয়। এঘটনায় উত্তেজিত জনগণকে শান্ত করতে স্থানীয় প্রশাসন আজ মঙ্গলবার হাতিমুড়া এলাকা পরিদর্শন করেন।

ক্ষতিগ্রস্থ বাঙ্গালী পরিবারগুলো অভিযোগ করে বলেন, সোমবার রাত ১১টার দিকে ৩০-৪০ জন পাহাড়ি যুবক দাঁ ও লাঠিসোঠা নিয়ে প্রথমে আব্দুর রাজ্জাকের বাড়িতে ভাংচুর শুরু করে। পরে ইমদাদ ও আবুল কালামের বাড়িতে ভাংচুর করে অগ্নিসংযোগ করতে চাইলে স্থানীয় জনগণ ও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যদের এগিয়ে আসতে দেখে সন্ত্রাসীরা গবাদি পশু ও কাপড় রাখার স্যুাটকেসসহ প্রয়োজনীয় জিনিসপত্র নিয়ে পালিয়ে যায়।

৩নং হাফছড়ি ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান উশেপ্রু মার্মা বলেন, গত মাস ছ’য়েক আগে হাফছড়ি ইউনিয়নের ভিজাবাওন্তি টিলা এলাকায় ক্ষতিগ্রস্থ ওই তিন পরিবার কৃষি কাজ শুরু করে। কৃষি কাজের পাশাপাশি তারা সেখানে পরিবার নিয়ে বসবাস করে আসছিলো। গত কিছুদিন ধরে ওই ভূমি পাহাড়ীদের নিজেদের ভূমি দাবী করা শুরু করলে বিরোধের সৃষ্টি হয় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোর সাথে। এর জেরেই গত সোমবার রাতে তাদের বাড়ি ঘরে ভাংচুর, অগ্নিসংযোগের চেষ্টা ও ঘরের মালামাল লুটপাটের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রাত থেকে এলাকায় উত্তেজনার সৃষ্টি হয়।

এদিকে উত্তেজিত এলাকাবাসীকে শান্ত করতে হাতিমুড়া এলাকা পরিদর্শনে যান খাগড়াছড়ির গুইমারা সেনা রিজিয়ন ও ২৪ পদাতিক আর্টিলারী ব্রিগেডের কমান্ডার ব্রি. জেনারেল তোফায়েল আহমেদ, পিএসসি, খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী, জেলা প্রশাসক মুহাম্মদ ওয়াহিদুজ্জামান, পুলিশ সুপার মো: মজিদ আলী বিপিএম(সেবা), মানিকছড়ি উপজেলার নিবার্হী অফিসার যুঁথিকা সরকার, রামগড় উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শহীদুল ইসলাম ভূইয়া ফরহাদ, জেলা পরিষদের সদস্য ও জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আলহাজ্ব মো: জাহেদুল আলমসহ সামরিক বেসামরিক কর্মকর্তা ও জনপ্রতিনিধিরা।

ভূমি বিরোধের বিষয়ে খাগড়াছড়ি পার্বত্য জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান কংজরী চৌধুরী বলেন, ভূমি সমস্যা পার্বত্য চট্টগ্রামের প্রধান সমস্যা। এ সমস্যা সমাধানে সবাইকে সজাগ থেকে কাজ করতে হবে। এর জন্য প্রয়োজন ভূমি বিরোধ নিষ্পত্তি কমিশনকে সচল করে ভূমির জরিপ করে যার যার ভূমি তাকে বুঝিয়ে দিলে এ নিয়ে সৃষ্ট জটিলতার সমাধান হবে।

এ ঘটনার প্রতিবাদে আজ মঙ্গলবার সকালে খাগড়াছড়ি জেলা শহরে বিক্ষোভ মিছিল করে পার্বত্য বাঙ্গালী ছাত্র পরিষদ। গুইমারা বাজারে সকালে চট্টগ্রাম-খাগড়াছড়ি সড়ক অবরোধ করে বিক্ষোভ করেন বাঙ্গালীরা। পরে প্রশাসনের আশ্বাসের ভিত্তিতে সড়ক ছেড়ে দেয় বিক্ষোভকারীরা।

ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারগুলোকে সিন্দুকছড়ি জোনের পক্ষ থেকে নগদ অর্থ, শুকনো খাবার প্রদান করা হয়।

খাগড়াছড়ি নিউজ/এনএম/মঙ্গলবার; ১১আগস্ট, ২০১৫ইং।।

মতামত...