বাগেরহাটে ৫ নম্বর বিপদ সংকেত : সরকারি ছুটি বাতিল, প্রস্তুত ২০৭ আশ্রয়কেন্দ্র

Bagerhat picস্বদেশ ডেস্ক, বাগেরহাট : বাগেরহাট প্রশাসনের পক্ষ থেকে ঘূর্ণিঝড় কোমেন মোকাবেলায় সম্ভাব্য সকল প্রস্তুতি সম্পন্ন করেছে। দুর্যোগ মোকাবেলায় প্রস্তুত রাখা হয়েছে জেলার ২০৭টি সাইক্লোন সেল্টার। বাতিল করা হয়েছে সকল সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ছুটি।

বৃহস্পতিবার সকালে বাগেরহাট জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক মো. শফিকুল ইসলামের সভাপতিত্বে দুর্যোগ ব্যাবস্থাপনা কমিটির জরুরি সভায় এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।

বেলা সাড়ে ১১টায় সভা শেষে মো. শফিকুল ইসলাম সাংবাদিকদের বলেন, ‘সার্বক্ষনিক দুর্যোগ প্রস্তুতি মনিটরিংয়ের জন্য জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে ৫টি কন্ট্রোল রুম খোলা হয়েছে। মাইকিং করে জেলার উপকূলীয় উপজেলা শরণখোলা, মোরেলগঞ্জ, রামপাল ও মংলা এলাকায় জন সাধারণকে নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে বলা হচ্ছে।’

প্রতিটি উপজেলায় প্রস্তুত রাখা হয়েছে মেটিকেল টিম ও স্বেচ্ছাসেবক। এছাড়া উপজেলা প্রশাসনের সকল স্তরের কর্মকর্তা ও কর্মচারিদের ছুটি বাতিল করে তাদের কর্মস্থলে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলেও জানান ভারপ্রাপ্ত জেলা প্রশাসক।

সভায় রামপাল উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) রাজিব কুমার রায় বলেন, ‘এখনও রোদ্রজ্জল আবহাওয়া থাকায় সবাই আশ্রয় কেন্দ্রে আসতে চাইছে না। তবে উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকলকে সর্তক অবস্থায় প্রস্তুত থকতে বলা হয়েছে। ঘূর্ণিঝড়টি উপকূলের দিকে আরও অগ্রসর হলে ঝুকিপূর্ণ সকলে সরিয়ে নেয়া হবে।’

সভায় জেলা প্রশাসন ও সকল সককারি-বেসকরকারি দপ্তরে কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

রাতে ভারি বর্ষণ হলেও বৃহস্পতিবার সকাল থেকে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত বাগেরহাট জেলায় মেঘাচ্ছন গুমোট আবহাওয়া বিরাজ করছে।

সুন্দরবন পূর্ব বন বিভাগের শরণখোলা রেঞ্জে সহকারী বন সংরক্ষক (এসিএফ) মো. কামাল উদ্দিন বলেন, ‘সাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরা ট্রলার ও নৌকা সুন্দরবনের নদী ও খালে নিরাপদ আশ্রয় নিয়েছে।

এদিকে মংলাসহ উপকূলে আবহাওয়া দপ্তরের জরি করা ৫ নম্বর বিপদ সংকেত বলবৎ রয়েছে।

খানিডে/স্বডে/বিএম/শাই/তাং-৩০ জুলাই ২০১৫ইং-॥

মতামত...